শীত কালে আদা চা পানে উপকারিতা

0
21

চা, কফি পান করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। আড্ডা দিতে, ক্লান্তি দূর করতে, কাজের ফাঁকে চা-কফি পানের তুলনা নেই। কেউ চা খেতে বেশি পছন্দ করেন, কেউ আবার কফি। যারা স্বাস্থ্য সচেতন, তারা গ্রিন টি বেশি পছন্দ করেন। অনেকের আবার আদা চা, লেবু চা-তেই মন জুড়িয়ে যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, সর্দি-কাশি নিরাময়ে আদা চা বেশি উপকারী।

অনেকে সকালে লেবু-আদা চা পান করেন। লেবু আদা চা পান করলে, বমি বমি ভাব, মাথা ব্যথা, ঠান্ডা লাগা ইত্যাদি অনেক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এছাড়াও এই চায়ের আরও উপকারিতা রয়েছে। যেমন-

১. শারীরিক দুর্বলতা, গর্ভাবস্থা, কেমোথেরাপি বা চিকিৎসার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কারণে অনেক সময় বমি বমি ভাব আসে। এক্ষেত্রে, লেবু- আদা চা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। গবেষণায় দেখা গেছে, বমি বমি ভাব, বদহজম, ডায়রিয়া এবং পেটে ব্যথার মতো সমস্যার চিকিৎসা করার ক্ষেত্রে আদা বেশ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

২. আদা জমে থাকা কফ ও রক্ত জমার হাত থেকে স্বস্তি দেয়। লেবুতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি থাকায় এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

৩. লেবু-আদা চা খেলে মুড ভালো থাকে এবং ক্লান্তি দূর হয়।

৪. লেবু- আদা চা হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়। আদা রক্ত সরবরাহ বাড়াতে ভূমিকা রাখে। এতে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি, অ্যান্টি-প্লেটলেট, হাইপোটেনসিভ  এবং হাইপোলিপিডেমিক উপাদান হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সহায়তা করে।

৫. লেবু শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করতে ভূমিকা রাখে। এতে কিডনি, লিভার এবং অন্ত্রের নানা সমস্যা কমে। প্রতিদিন সকালে এই চা পান করলে শরীরে সজীবতা বজায় থাকে। লেবু শরীর থেকে টক্সিন বের করতে সাহায্য করায় হজম ভালো হয়।

৬. লেবু-আদা চা সর্দি-কাশি, ঠান্ডা লাগা থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। সেই সঙ্গে দুটি উপাদানই সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে খুবই কার্যকর।